হাভানায় বিলাসবহুল হোটেলে বিস্ফোরণে ২২ জন নিহত, কয়েক ডজন আহত

Share

কিউবার রাজধানীর কেন্দ্রস্থলে একটি বিলাসবহুল হোটেলে গ্যাস লিকেজের কারণে সংঘটিত একটি শক্তিশালী বিস্ফোরণে শুক্রবার (৬ মে) এক শিশুসহ অন্তত ২২ জন নিহত এবং কয়েক ডজন ব্যক্তি আহত হয়েছেন। বিস্ফোরণে হোটেলটির বাইরের দেয়াল উড়ে যায়।

সংস্কার কাজ চালু থাকায় হাভানার ৯৬ কক্ষবিশিষ্ট হোটেল সারাতোগায় কোনো পর্যটক ছিলেন না বলে কমিউনিস্ট পার্টির সংবাদপত্র গ্রানমাকে জানান হাভানার গভর্নর রেনাল্ডো গার্সিয়া জাপাতা।

“এটা কোনো বোমা বিস্ফোরণ বা অন্য কোনো হামলা নয়। এটি একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনা মাত্র”, দুর্ঘটনার স্থান পরিদর্শনের পর প্রেসিডেন্ট মিগুয়েল ডায়াজ-ক্যানেল এক টুইটে বলেছেন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের হাসপাতাল বিভাগের প্রধান ডা. জুলিও গুয়েরা ইজকুয়ের্দো সাংবাদিকদের বলেছেন যে, কমপক্ষে ৭৪ জন আহত হয়েছেন। ডায়াজ-ক্যানেলের কার্যালয় থেকে করা একটি টুইট অনুসারে, তাদের মধ্যে ১৪ জন শিশু।

ডায়াজ-ক্যানেল বলেন, বিস্ফোরণে ক্ষতিগ্রস্ত হোটেলের কাছাকাছি ভবনগুলোর পরিবারগুলোকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

কিউবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন জানিয়েছে, হোটেলে গ্যাস সরবরাহকারী একটি ট্রাক থেকে বিস্ফোরণটি ঘটে। তবে কীভাবে গ্যাসে বিস্ফোরণ ঘটে সে বিষয়ে বিশদ বর্ণনা দেওয়া হয়নি। একটি সাদা ট্যাংকার ট্রাককে ঘটনাস্থল থেকে সরিয়ে নিতে দেখা যায়। উদ্ধারকর্মীরা পানি দিয়ে ট্রাকটির আগুন নেভান।

পর্যটনমন্ত্রী হুয়ান কার্লোস গার্সিয়া বলেছেন, মঙ্গলবার হোটেলটি আবার খোলার কথা ছিল।

কিউবার জাতীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হোসে অ্যাঞ্জেল পোর্টাল দ্য অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে বলেছেন, শহরের পুরাতন অংশে অবস্থিত ১৯ শতকের এই ভবনের ধ্বংসস্তূপে জীবিত ব্যক্তিদের সন্ধানে এখনো অনুসন্ধান অব্যাহত রয়েছে এবং আহতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

অগ্নিনির্বাপক বিভাগের লেফটেন্যান্ট কর্নেল নোয়েল সিলভা বলেন, “ধ্বংসস্তূপের নিচে অনেকে আটকে থাকতে পারেন এবং আমরা অনুসন্ধান অব্যাহত রেখেছি”।

হোটেলের পাশে প্রায় ৩০০ ছাত্র-ছাত্রীর একটি স্কুল খালি করা হয়েছে। গার্সিয়া জাপাতা বলেন, ছাত্রদের মধ্যে পাঁচজন সামান্য আহত হয়েছেন।

কিউবার ক্যাপিটল বিল্ডিং থেকে প্রায় ১০০ মিটার দূরে অবস্থিত সৌখিন এই হোটেলের ধ্বংসাবশেষের ভেতরে অগ্নিনির্বাপক ও উদ্ধারকর্মীরা তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন এবং পুলিশ এলাকাটি ঘিরে রেখেছে।

গুরুত্বপূর্ণ ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বরা প্রায়শই হোটেল সারাতোগাতে অবস্থান করেন। এসব গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চপদস্থ সরকারী প্রতিনিধিদল। এছাড়া সঙ্গীতশিল্পী বিয়ন্সে এবং জে-জি ২০১৩ সালে কিউবা সফরের সময় এই হোটেলেই অবস্থান করেন।

ফটোগ্রাফার মিশেল ফিগুয়েরো বলেন, তিনি হোটেলের পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন, হঠাৎ “বিস্ফোরণের কারণে আমি মাটিতে পড়ে যাই এবং আমার মাথা এখনো ব্যাথা করছে। … চোখের পলকে এতকিছু ঘটে গেল”।

গার্সিয়া জাপাতা বলেন, বেশি ক্ষতিগ্রস্ত দুটি আবাসিক ভবনসহ হোটেলসংলগ্ন অন্য অবকাঠামোগুলো পরীক্ষা করা হচ্ছে। বিস্ফোরণে পার্শ্ববর্তী মার্টি থিয়েটার, ইওরুবা অ্যাসোসিয়েশন ও ক্যাপিটলের কাচ ভেঙে পড়েছে এবং নির্মাণাধীন দেয়াল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

Leave A Reply