জন্মনিবন্ধন সনদ পেতে হয়রানি বন্ধে আইনি নোটিশ

Share

জন্মনিবন্ধন সনদ পেতে নাগরিকদের হয়রানি বন্ধে পদক্ষেপ নিতে সরকারকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে নোটিশে কয়েক কোটি মানুষের জন্মনিবন্ধন তথ্য সার্ভারেই নেই- এমন অভিযোগ অনুসন্ধান বা তদন্তের জন্য আগামী পাঁচদিনের মধ্যে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে। সোমবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী তানভীর আহমেদ এলজিআরডি সচিব, স্থানীয় সরকার বিভাগের জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন, রেজিস্ট্রার জেনারেলসহ চারজনকে এ নোটিশ পাঠিয়েছেন।
এডভোকেট তানভীর আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেন, জন্মনিবন্ধন সনদ নিয়ে চরম ভোগান্তিতে নাগরিকরা’ এবং ‘জন্মসনদ: বাংলাদেশে কয়েক কোটি মানুষের জন্মনিবন্ধন তথ্য সার্ভারেই নেই’- শিরোনামে বেশ কয়েকটি পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। ওই প্রতিবেদন দেখে নোটিশ পাঠিয়েছেন এই আইনজীবী। তিনি আরও বলেন, নোটিশ অনুসারে পদক্ষেপ না নিলে পরবর্তী আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০০৪ সালে জন্মনিবন্ধন আইন করা হয়, কার্যকর হয় ২০০৬ সালে। পাসপোর্ট ইস্যু, বিবাহ নিবন্ধন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি, ড্রাইভিং লাইসেন্স নেওয়া, জমি রেজিস্ট্রেশনসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ কাজে জন্মনিবন্ধন সনদ বাধ্যতামূলক। শুরুতে হাতে লেখা সনদ দেওয়া হতো। এরপর ২০১০ সালের শেষদিকে এসে তা ডিজিটাল করার উদ্যোগ নেওয়া হয়।

সে সময় দায়িত্বপ্রাপ্ত নিবন্ধকদের কম্পিউটার প্রশিক্ষণের জন্য সরকার আলাদা বরাদ্দও দেয়। কিন্তু সে সময় সব তথ্য ডিজিটাল করা হয়নি। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, জনবসতি বেশি এমন এলাকাগুলো, বিশেষ করে সিটি করপোরেশনে তথ্য হালনাগাদ পুরোপুরি হয়নি। ২০১০ সালের পর যে সার্ভারে কাজ করা হতো, তা বছরখানেক আগে পাল্টানো হয়। নতুন এই সার্ভারেও আগের সার্ভারের সব তথ্য স্থানান্তর হয়নি বলে জানান- এক সিটি করপোরেশনের একজন কর্মকর্তা। এতে ভোগান্তিতে পড়েন অনেকে। পুরনো সনদ এখন আর কোনো কাজেই আসছে না। নতুন করে সনদ নিতে হচ্ছে।

Leave A Reply