পুলিশের এএসআই বরখাস্ত:কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত তরুণীকে ধর্ষণ

খুলনা মহানগরীতে ভারতফেরত কোয়ারেন্টিনে থাকা এক তরুণীকে (২২) ধর্ষণের অভিযোগে মোখলেছুর রহমান নামে পুলিশের এক এএসআইকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। খুলনা সদর থানায় ভুক্তভোগী ওই তরুণী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করলে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। নির্যাতিত তরুণী খুমেক হাসপাতালের ওসিসিতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানা গেছে, ওই তরুণী গত ৪ঠা মে ভারত থেকে এসে খুলনা পিটিআই সেন্টারে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। কোয়ারেন্টিন চলাকালীন এএসআই মোখলেছুর রহমানের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক হয়। একপর্যায়ে গত ১৪ই মে মোখলেছুর রহমান তাকে ধর্ষণ করে।

কেএমপি’র ডেপুটি কমিশনার (দক্ষিণ) মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়েরের পর এএসআই মোকলেছুর রহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মোখলেছুর রহমান খুলনা মেট্রপলিটন পুলিশের (কেএমপি) কোর্ট অতিরিক্ত উপ-পরিদর্শক (এএসআই) হিসেবে কর্মরত। তিনি খুলনার পিটিআই কোয়ারেন্টিন সেন্টারে গত ১লা মে থেকে দায়িত্ব পালন করছিলেন।
অভিযুক্ত মোকলেছুর রহমান (৪৪) যশোর সদরের দৌলদিহি এলাকার মৃত মো. সেকেন্দার আলীর ছেলে।

অপরদিকে কেএমপির এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ১৩ই মে রাত ১টা হতে ৮টা পর্যন্ত খুলনা সদর থানাধীন প্রাইমারি ট্রেনিং ইনস্টিটিউট (পিটিআই) এর মহিলা হোস্টেলে কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত বাংলাদেশিদের নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন এএসআই মোকলেছুর রহমান। ডিউটিতে থাকাকালীন এএসআই মোকলেছুর রহমান ২য় তলায় কোয়ারেন্টিনে থাকা এক নারীর ঘরে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করে। ১৫ই মে রাত ১২টা ২০ মিনিটে এএসআই মোকলেছুর আবারো ভিকটিমের রুমে এসে পুনরায় জোর করলে ভিকটিম চিৎকার করে। এ সময় এএসআই মোকলেছুর দ্রুত নিচে চলে যায়। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তপক্ষের নজরে আসলে সত্যতা যাচাইয়ের জন্য প্রাথমিক অনুসন্ধান করা হয়। অনুসন্ধানকালে ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পরিলক্ষিত হলে কেএমপি’র প্রসিকিউশন আদেশে এএসআই মোকলেছুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।