ফিলিস্তিনের পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ

আরও জটিল আকার ধারণ করেছে ফিলিস্তিনের পরিস্থিতি। মঙ্গলবারও (১১ মে) একাধিকবার আক্রমণ চালিয়েছে ইসরাইল। এতে নিরস্ত্র ফিলিস্তিনি অনেকে আহত হয়েছেন, ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বাড়িঘর, স্থাপনা। পাল্টা হামলা চালিয়েছে স্বাধীনতার সপক্ষের সংগঠন হামাস। ফিলিস্তিনিদের ওপর সোমবারের বিমান হামলায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৮ জনে দাঁড়িয়েছে। আহত দেড় শতাধিক, এর মধ্যে অনেকে হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন।

দখলদার ইসরাইল যে কতটা বর্বর তার সাক্ষ্য দিচ্ছে শিশুদের কান্না। মঙ্গলবার ফিলিস্তিনিদের বসতি লক্ষ্য করে বিমান হামলা চালায় ইসরাইলি বাহিনী। এতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বহু স্থাপনা। জ্বলছে বেশ কিছু এলাকা।

রকেট হামলা চালিয়ে কিছুটা প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা চালিয়েছে, ফিলিস্তিনিদের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। ইসরাইল দাবি করেছে, এতে তাদের দুজন নিহত হয়েছে।

সোমবার (১০ মে) ফিলিস্তিনিদের ওপর চালানো ইসরাইলের একপেশে হামলায়, নিহত বেশ কয়েকজনের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রমজানে রোজা রেখে শত শত মানুষ মরদেহ নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তোলার প্রতিজ্ঞা করেন।

ইসরাইলের এই দমনপীড়ন এখনও চলছে। ফিলিস্তিনিদের দমাতে তারা অভিযান অব্যাহত রেখেছে। পবিত্র আল আকসা প্রাঙ্গণ দখলে নিয়েছে দখলদাররা। এ অবস্থায় হামাসকে ধ্বংস করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বিনইয়ামিন নেতানিয়াহু।

দখলদারদের সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে মিত্র যুক্তরাষ্ট্র। সহিংসতার জন্য উল্টো হামাসকেই দুষছে তারা।