যুক্তরাজ্যের করোনভাইরাস মৃত্যুর সংখ্যা ৬২৭ বেড়ে ৩২,৬৯২ এ দাঁড়িয়েছে

যুক্তরাজ্যে কোভিড -১৯ এর মধ্যে আরও ৬২৭ জন মারা গেছেন, যার ফলে সরকারের হিসাবে মৃত্যুর পরিমাণ দাড়িয়েছে ৩২,৬৯২ জন।

তবে অফিস অফ ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিকস, এনএইচএস ইংল্যান্ড , স্কটল্যান্ড এবং উত্তর আয়ারল্যান্ডের কর্তৃপক্ষের সর্বাধিক যুগোপযুক্ত পরিসংখ্যান যুক্ত করার কারণে ৪০,২৯৭ জন মারা গেছে।
যুক্তরাজ্যের মৃত্যুর সংখ্যা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরে বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের সর্বশেষ পরিসংখ্যান বলছে ১,৪৬০,৫১৭ জনের পরীক্ষা করা হয়েছে, যাদের মধ্যে২২৬,৪৬৩ জন ইতিবাচক পাওয়া গেছে।।

জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটি জানিয়েছে, বিশ্বব্যাপী কোভিড -১৯ এর ২৮৭,১৫৮ জন মারা গেছে।
সব মিলিয়ে ২,০০৭,১৪৬ জনকে পরীক্ষা করা হয়েছে।
তবে আবার প্রতিদিনের পরীক্ষার চিত্রটি সোমবার ৮৫,২৯৩ টি পরীক্ষার সাথে ম্যাট হ্যানককের প্রতিদিনের ১০০,০০০ পরীক্ষার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে কম হয়ে যায়।

আন্তর্জাতিক নার্স ’দিবস উপলক্ষে ‘বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল সাউথাম্পটন” তার ৩৫০০ নার্সকে বছরের সেরা নার্স হিসাবে ঘোষনা দিয়েছে।
অফিস অফ ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিক্স (ওএনএস) অনুসারে, সপ্তাহের মধ্যে ১ই মে থেকে ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস-এ রেজিস্ট্রেশন করা করোনভাইরাস-সংক্রান্ত মৃত্যুর হার কেয়ার হোমগুলিতে ৪০% ছিল। ।

ন্যাশনাল স্ট্যাটিস্টিক্স (ওএনএস) অনুসারে ২১ মার্চ থেকে ১ মে সমাপ্ত সপ্তাহে নিবন্ধিত ৬,০৩৫ কোভিড -১৯ মৃত্যুর মধ্যে ২,৪২৩ (৪০% শতাংশ) হাসপাতালে ৩,২১৪ (৫৩%শতাংশ) তুলনায় কেয়ার হোমে ছিলেন।
এই সাপ্তাহিক কেয়ার হোমের মৃত্যুর সংখ্যা আগের সাত দিনের তুলনায় ২,৪৯৪ থেকে কিছুটা কম এবং ২০ শে মার্চ, ২০০০ সালের পর সপ্তাহে প্রথম সপ্তাহে হ্রাস।

ওএনএসের পরিসংখ্যানও ২১ মার্চ থেকে ১ মে এর মধ্যে দেখায় যে বিগত পাঁচ বছরে এই সময়ের গড় তুলনায় ৪৬,৪৯৪ জন বেশি মারা গেছে।