গাজীপুরে চার খুনে কী রহস্য? জট খোলেনি তিন দিনেও

তিন দিনেও গাজীপুরের শ্রীপুরে মা ও তিন সন্তানকে নৃশংসভাবে গলা কেটে হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন হয়নি। তবে গাজীপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার বলেছেন, ‘আমরা কাজ করে যাচ্ছি। মূল রহস্য উদ্ঘাটনে আমাদের জোর তৎপরতা অব্যাহত আছে। সন্দেহজনক ব্যক্তিদের জিঙ্গাসাবাদ করা হচ্ছে। আশা করছি যে কোনো সময় একটা ভালো ফল বেরিয়ে আসতে পারে। আমরা বিভিন্ন বিষয় সামনে রেখে তদন্ত এগিয়ে নিচ্ছি। তবে তদন্তের স্বার্থে সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয় প্রকাশ করতে চাইছি না। হত্যার রহস্য কী, কারা ঘটিয়েছে তা উদ্্ঘাটনের চেষ্টা চলছে।’

এদিকে দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত মা ও তার তিন সন্তানকে পাশাপাশি চারটি কবরে দাফন করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলার লংগাইর ইউনিয়নের গোলাবাড়ী গ্রামের পারিবারিক গোরস্তানে তাদের দাফন করা হয়। লংগাইর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল আমিন বিপ্লব সাংবাদিকদের জানান, ময়নাতদন্ত ও আইনগত প্রক্রিয়া শেষে শুক্রবার নিহতদের লাশ তাদের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার গফরগাঁও উপজেলার লংগাইর ইউনিয়নের গোলাবাড়ী গ্রামে পৌঁছায়। রাতে তারাবির নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে পাশাপাশি চারটি কবরে নিহতদের লাশ দাফন করা হয়। জানাজায় ইমামতি করেন স্থানীয় মসজিদের ইমাম মোখলেছুর রহমান। এর আগে শুক্রবার গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে চারজনের লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। তিনি বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতির কারণে জানাজায় যেন বেশি লোকের সমাগম না হয় সে জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে আগেই বলা হয়েছিল। আমরা সেই মোতাবেকই দাফন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছি। এ জন্য গ্রামে লাশগুলো পৌঁছার আগেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় পাগলা থানা পুলিশ।’ শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. লিয়াকত আলী জানান, শ্রীপুরের তেলিহাটি ইউনিয়নের জৈনাবাজার কলেজ রোডের আবদার গ্রামের প্রবাসী কাজল মিয়ার দোতলা বাড়ি থেকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তার বড় মেয়ে সাবরিনা সুলতানা নূরা (১৬), ছোট মেয়ে হাওয়ারিন (১২) ও বাক প্রতিবন্ধী ছেলে ফাদিল (৮) এবং ইন্দোনেশীয় বংশোদ্ভূত তার স্ত্রী স্মৃতি ফাতেমার (৪৫) গলা কাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। হত্যা ঘটনার রহস্য উদ্্ঘাটনের জন্য র‌্যাব, গোয়েন্দা পুলিশ, সিআইডি ও পিবিআই সদস্যরা ছায়াতদন্ত অব্যাহত রেখেছেন। ইতিমধ্যে তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তারা সেখানে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গেও কথা বলেছেন। নিহত স্মৃতি ফাতেমার শ্বশুর আবুল হোসেন অজ্ঞাত পরিচয় দুর্বৃত্ত দলকে আসামি করে থানায় মামলা করেছেন।