কিছুই গোপন করা হয়নি: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

চীনে শুরু হওয়া করোনাভাইরাসের মহামারিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) প্রথমে তেমন গুরুত্ব দেয়নি বলে অভিযোগ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। তারই প্রেক্ষিতে সোমবার সংস্থাটির প্রধান টেড্রোস অ্যাধনম ঘেব্রেইয়েসাস বলেন, তারা প্রথম থেকেই মহামারি কোভিড-১৯ সম্পর্কে সতর্ক করে আসছে এবং এ বিষয়ে ওয়াশিংটনের কাছে কিছুই লুকানো হয়নি। জাতিসংঘের এ সংস্থায় গোপনীয় কিছুই নেই।

জেনেভা থেকে ভার্চুয়াল বৈঠকে তিনি বলেন, আমরা প্রথম দিন থেকেই করোনার ভয়াবহতার বিষয়ে সতর্ক করে আসছি এবং বলেছি প্রত্যেকেরই লড়াই করা উচিত।
ডব্লিউএইচও বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের স্বাস্থ্য সুরক্ষা সংস্থা সেন্টার্স ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন (সিডিসি) এর ১৫ জন স্টাফ কোভিড-১৯ মোকাবেলায় সংস্থাটির সঙ্গে কাজ করছে।

টেড্রোস বলেন, এর মানে প্রথম দিন থেকেই যুক্তরাষ্ট্রের কাছে কোন কিছুই গোপন নেই। কারণ, আমেরিকানরা আমাদের সঙ্গে কাজ করছে।

তিনি বলেন, ডব্লিউএইচও উন্মুক্ত। আমরা কিছুই লুকাইনি। কেবল সিডিসি’র জন্যেই নয়, আমরা সকল দেশকেই অবিলম্বে বার্তা দিয়েছি। যাতে দেশগুলো দ্রুত ও ভাল প্রস্ততি গ্রহনের সুযোগ পায়।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে শুরু হওয়া এই করোনা ভাইরাসে বিশ্বের ২৪ লাখ ৮০ হাজারের বেশি লোক আক্রান্ত এবং মারা গেছে ১,৭০,০০০ এরও বেশি। এর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে সবচয়ে বেশি ৪২ হাজারেরও বেশি লোক মারা গেছে। দেশটির প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনা মোকাবেলায় তার গৃহীত পদক্ষেপের কারণে সমালোচিত হচ্ছেন।

এদিকে, ডব্লিউএইচও’র সবচেয়ে বড় দাতা দেশ যুক্তরাষ্ট্র সংস্থাটির বিরুদ্ধে অব্যবস্থাপনা ও চীনমুখী হওয়ার অভিযোগ এনে তহবিল প্রদান বন্ধ করে দিয়েছে।