বিয়ানীবাজারে করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তির দাফনে ১০ স্বেচ্ছাসেবী

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বা করোনা সন্দেহে কোনো ব্যক্তি মারা গেলে তার দাফন ও সৎকার কাজে আগ্রহী হয়েছেন বিয়ানীবাজার উপজেলার ১০ জন স্বেচ্ছাসেবী। এসব স্বেচ্ছাসেবীরা জানান, সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য এ মহতী কাজ করতে আগ্রহী হয়েছেন তারা।
ওই স্বেচ্ছাসেবীরা হচ্ছেন উপজেলার মাথিউরা ইউনিয়নের নালবহর গ্রামের হানিফ মোহাম্মদ ইফতেখার, চারখাই ইউনিয়নের বাঘবাড়ি গ্রামের রুহিন চৌধুরী ফরহাদ, চারখাই ইউনিয়নের পল্লীশাসন মোহনপুর গ্রামের লিপি বিশ্বাস, দুবাগ ইউনিয়নের চরিয়া গ্রামের আবুল কাশেম চৌধুরী, শ্রীধরা গ্রামের রেহান আহমেদ, নয়াগ্রামের আব্দুল্লাহ, আলীনগর গ্রামের শামীম আহমদ, দুবাগ গ্রামের বিজয় চক্রবর্তী, লাউতা ইউনিয়নের নন্দীরফল গ্রামের তাবাসুসুম আরা ও মুড়িয়া ইউনিয়নের উত্তর চন্দগ্রামের নছিমা বেগম।

jdজানা গেছে, গত সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী মাহবুব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কোনো ব্যক্তি মারা গেলে তার দাফন ও সৎকারের ১০ জন স্বেচ্ছাসেবী দরকার শিরোনামে একটি স্ট্যাটাস দেন। ওই স্ট্যাটাসে তিনি উল্লেখ করেন, ৭জন পুরুষ ও ৩জন মহিলা মিলে মোট ১০জন স্বেচ্ছাসেবক দরকার। করোনাভাইরাসে মৃত মানুষের লাশ দাফন-সৎকারে তাদের প্রশিক্ষণ ও প্রয়োজনীয় সামগ্রী দেয়া হবে। আগ্রহীদের সহকারী কমিশনার (ভূমি) খুশনূর রুবাইয়াত মৌমিতার মুঠোফোন নম্বরে কল দিয়ে রেসজিস্ট্রেশনের আহ্বান জানানো হয়। সোমবার বিকালের মধ্যেই উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ২৭ জন পুরুষ ও মহিলা স্বেচ্ছাসেবী যোগাযোগ করেন প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে। পরে প্রশাসনের দায়িত্বশীলরা সেই আহ্বানে সাড়া দেয়া স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্য থেকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ১০ জন স্বেচ্ছাসেবীকে প্রশিক্ষণের জন্য নির্বাচিত করেন।।