ইরানে মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে যুক্তরাষ্ট্র: শামখানি

ইরানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি বলেছেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় বিদেশ থেকে নিজের পাওনা অর্থ ও চিকিৎসা সামগ্রী আমদানির কাজে তেহরানকে বাধা দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রশাসন মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে।

নিজেরর অফিসিয়াল টুইটার পেজে রোববার দেয়া এক পোস্টে তিনি বলেন, চিকিৎসার কাজে ব্যবহৃত পণ্যের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ মানেই মানবাধিকারের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। খবর পার্সটুডের।

এ কাজ করে যুক্তরাষ্ট্র চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে ইরানি জনগণের প্রতি তার শত্রুতার সীমা নেই।

শামখানি তার টুইটার বার্তায় আরও বলেন, ইরান যাতে করোনা মহামারী মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সামগ্রী আমদানি করতে না পারে সেজন্য আমেরিকা বিদেশে আটকে পড়া ইরানের পাওনা অর্থ দেশে আনতে দিচ্ছে না।

সেইসঙ্গে ট্রাম্প প্রশাসন আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলকে ইরানের জন্য ঋণ বরাদ্দ দিতে বাধা দিয়েছে। এটি মানবতাবিরোধী অপরাধের প্রকৃত দৃষ্টান্ত।

সম্প্রতি ইরানে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর আমেরিকা তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পরিবর্তে উল্টো তা জোরদার করেছে।

করোনা মোকাবিলার কাজ নির্বিঘ্নে করার জন্য তেহরান সম্প্রতি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল বা আইএমএফের কাছে পাঁচ বিলিয়ন ডলার ঋণ চেয়েছিল।

কিন্তু আমেরিকা ওই আন্তর্জাতিক আর্থিক সংস্থাটিকে তা দিতে বাধা দেয়। তেহরান পরিষ্কারভাবে ঘোষণা করেছে, আমেরিকার নিষেধাজ্ঞার কারণে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় তাদের বেশ বেগ পেতে