বাংলাদেশের উন্নয়ন ও প্রবাসীদের অধিকার কানেক্ট বাংলাদেশ

কানেক্ট বাংলাদেশ এর পক্ষ থেকে মহান বিজয় দিবসে দেশবাসী ও প্রবাসীদের জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা।
আজ ঐতিহাসিক মহান বিজয় দিবস। পৃথিবীর মানচিত্রে স্বাধীন-সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের অভ্যুদয় বাঙালি জাতিকে এনে দিয়েছিল আত্মপরিচয়ের ঠিকানা। আমাদের জাতীয় উন্নয়নের ইতিহাসে সবচেয়ে গৌরব ও অহংকারের দিন। ৪৮ বছর আগে এই দিনে বর্বর পাকিস্তানি বাহিনীকে আমরা পরাজিত করেছিলাম। লক্ষ লক্ষ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তস্রোত, আর বীরাঙ্গনাদের সীমাহীন ত্যাগের বিনিময়ে নয় মাসের যুদ্ধ শেষে অর্জিত হয়েছিল মহান এই বিজয়। সেদিন পাকিস্তানি বাহিনী স্বাক্ষর করেছিল পরাজয়ের সনদে। আর বীরের জাতি হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটেছিল বাঙালির।
আজ কৃতজ্ঞ জাতি গভীর বেদনা ও পরম শ্রদ্ধায় স্মরণ করবে স্বাধীনতার জন্য জীবন উৎসর্গ করা অকুতোভয় বীর সন্তানদের । মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে রাজধানী ঢাকা সহ দেশব্যাপী পালিত হবে নানা কর্মসূচি।
স্বাধীনতার ৪৮ বছরে অনেক অর্জন-সাফল্য আছে। রয়ে গেছে অনেক অপ্রাপ্তিও।
আজও আমরা আমাদের দেশে ও সমাজে অনেক আশা আখাংক্ষার বাস্তবায়ন হয়নি।
মৌলিক মানবাধিকার সমূহের সফল বাস্তবায়ন রায়ে গেছে অনেক দূরে।
স্বাধীন, নিরপেক্ষ ও সবার নিকট গ্রহণযোগ্য বিচার ব্যবস্থা ও নির্বাচনী প্রক্রিয়া এখনও অনুপস্থিত।মত প্রকাশের অবাধ স্বাধীনতা ও দল সমূহে গণতান্ত্রিক রীতিনীতির সঠিক চর্চা নেই বললে চলে।
পুলিশ ও প্রশাসন কোনভাবে একটি নিরপেক্ষ মানদন্ডে আসেনি।
প্রায় এককোটি বিশ লক্ষ প্রবাসী দেশের অর্থনীতিতে বড় অবদান রাখলেও তাদের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠা পায়নি। একইভাবে নেই কোন তাদের প্রতিনিধিত্বের ব্যবস্থা। অথচ প্রবাসীদের দক্ষতা ও যোগ্যতা আজ ঈর্ষণীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে। যাহা দেশের সভ্যতা ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে।

সর্বোপরি মুক্তিযুদ্বের মূল্যবোধ সমূহের নেই কোন প্রত্যাশিত সফল বাস্তবায়ন।
সমাজে সমতা প্রতিষ্ঠা ও বৈষম্যের অবসান ঘটানোই হওয়া উচিত বিজয় দিবসে।
লেখক: মনসূর চৌধুরী, ফ্রান্স থেকে