মোদীকে সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মাননা না দিতে আরব আমিরাতকে ব্রিটিশ এমপির চিঠি

ভারতের ক্ষমতাসীন হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপির নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সর্বোচ্চ সম্মাননা না দিতে দেশটির ক্রাউন প্রিন্সকে আহ্বান জানিয়েছেন এক ব্রিটিশ এমপি।

বার্ড ফোড থেকে নির্বাচিত নাজ শাহ নামের ওই মুসলিম এমপি আমিরাতের যুবরাজ শেখ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আন নাহিয়ানকে লেখা এক চিঠিতে বিষয়টি পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানান।

ক্রাউন প্রিন্সকে লেখা ওই চিঠিতে নাজ শাহ বলেন, আমাদের সঙ্গে বসবাসরত হাজারো কাশ্মীরি নয়, বরং আমি নিজেকে একজন কাশ্মীরি হিসেবে চিন্তা করে আপনাদের সিদ্ধান্তে হতাশ হয়েছি।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাতে আমিরাতে সর্বোচ্চ সম্মাননা ‘অর্ডার অফ জায়েদ’ তুলে দেয়ায় আমরা চরমভাবে ক্ষুব্ধ হয়েছি।

বিন জায়েদ আন নাহিয়ানের দৃষ্টি আকর্ষণ করে নাজ শাহ বলেন, বিগত ১৫ দিন ধরে কাশ্মীরি জনগণের সঙ্গে যে আচরণ করা হচ্ছে, আপনি নিশ্চয় সে বিষয়ে অবগত রয়েছেন। এই মুহূর্তে কাশ্মীরের মানুষ গোটা বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছে।

দুই পৃষ্ঠার ওই চিঠিতে মুসলিম এ ব্রিটিশ এমপি আরও বলেন, ব্যবসায়িক স্বার্থের কারণে আপনারা যদি কাশ্মীরি জনগণের পাশে দাঁড়াতে না পারেন, তাহলে অন্তত আরব আমিরাতের জনগণের কথা ভেবে আপনাদের এ বিষয়ে নীরব থাকা উচিত। কারণ ব্যবসায়িক কারণে সরকার চুপ থাকলেও আমিরাতের জনগণ নরেন্দ্র মোদীকে ঘৃণা করে।

প্রসঙ্গত, ভারতের উগ্র হিন্দুত্ববাদী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে সর্বোচ্চ বেসামরিক রাষ্ট্রীয় সম্মাননা দিতে যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত।

গত রবিবার ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফে এক বিবৃতিতে একথা জানানো হয়েছে চলতি মাসেই সংযুক্ত আরব আমিরাতের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান ‘অর্ডার অব জায়েদ’ পাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদী।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আগামী ২৩ ও ২৪ আগস্ট আমিরাত সফরে যাবেন মোদী। তখনই তাঁকে সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া হবে।

এ বছর এপ্রিল মাসে সংযুক্ত আরব আমিরাতের যুবরাজ ঘোষণা করেন, তাঁর ‘প্রিয় বন্ধু’ মোদীকে এই সম্মান দেওয়া হবে। আবুধাবির যুবরাজ টুইট করে বলেন, ‘‘ভারতের সঙ্গে আমাদের ঐতিহাসিক যোগাযোগ রয়েছে। আমার প্রিয় বন্ধু মোদীসেই যোগাযোগ দৃঢ়তর করে তুলেছেন। এই অবদানের স্বীকৃতি হিসাবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট তাঁকে জায়েদ পদক প্রদান করবেন।’’

তবে, তখন এই পুরস্কার প্রদানের সময় বা তারিখ জানানো হয়নি। জায়েদ মেডেল বা অর্ডার অব জায়েদ হল আমিরাতের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান। বিভিন্ন দেশের প্রেসিডেন্ট, রাজা বা অন্যান্য রাষ্ট্রপ্রধানকে ওই পদক দেওয়া হয়।

এর আগে এই সম্মান পেয়েছেন চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং, ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদ, ইরিট্রিয়ার প্রেসিডেন্ট ইসাইয়াস আফওয়েরকি। পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট পারভেজ মুশারফ, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

সূত্র : জিয়ো নিউজ