অনুচ্ছেদ ৩৭০ বাতিল, জম্মু-কাশ্মিরের আলাদা কোনো পতাকা থাকবে না

ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী কাশ্মীরকে দেওয়া বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সোমবার সকালে এ ঘোষণা দেওয়া হয়। ভারতের রাষ্ট্রপতি অনুমোদন দিলে ডিসেম্বর থেকে কার্যকর করা হবে। নতুন করে কাশ্মীরের ইতিহাস রচনার পথে মোদী সরকার। খবর সংবাদ প্রতিদিন ও আনন্দবাজার

ভারতীয় সংবিধানের ৩৫-ক ধারা অনুযায়ী কাশ্মীরের বাসিন্দা নয়—এমন ভারতীয়দের সম্পদের মালিক হওয়া এবং চাকরি পাওয়ায় বাধা আছে। ৩৭০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী জম্মু ও কাশ্মীরের এমন এক স্বায়ত্তশাসন রয়েছে, যা ১৯৪৭ সালের পর দক্ষিণ এশিয়ার আর কোনো ‘দেশীয় রাজ্য’ পায়নি। অনুচ্ছেদ ৩৭০ ভারতীয় রাজ্য জম্মু ও কাশ্মীরকে নিজেদের সংবিধান ও একটি আলাদা পতাকার স্বাধীনতা দেয়। এছাড়া পররাষ্ট্র সম্পর্কিত বিষয়াদি, প্রতিরক্ষা এবং যোগাযোগ বাদে অন্যান্য সকল ক্ষেত্রে স্বাধীনতার নিশ্চয়তাও দেয়।

জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে বিতর্কিত ৩৭০ ধারা বাতিল করতে সংসদে প্রস্তাব পেশ করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সংসদের অনুমোদনের পরই রাষ্ট্রপতি রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ এই প্রস্তাবে সই করেছেন। রাষ্ট্রপতির সইয়ের সঙ্গে সঙ্গেই কাশ্মীরকে বিশেষ রাজ্যের মর্যাদা দেওয়া ৩৭০ ধারা বিলুপ্ত হল।

বিরোধীদের প্রবল বিরোধিতা ও হট্টগোলের মধ্যে বিতর্কিত ধারাটিকে বাতিল করতে রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশ করা হয়। এদিন সাতসকালেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ একান্তে আলোচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তারপর কথা বললেন নিরাপত্তা বিষয়ক ক্যাবিনেট কমিটির সঙ্গেও। সবশেষে শুরু হয় মন্ত্রিসভার বৈঠক। ফলে বড়সড় কিছু হতে চলেছে তার ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছিল

গতকালই জরুরি ভিত্তিতে মন্ত্রিসভার বৈঠক ডাকেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মন্ত্রীদের বলা হয় সংসদের অধিবেশন শুরু হওয়ার আগেই প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে হবে বৈঠক। সেইমতো মন্ত্রীরাও আসেন সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ। কিন্তু, ততক্ষণে প্রধানমন্ত্রীর কার্যকলাপ শুরু হয়ে গিয়েছে। একান্তে তিনি দীর্ঘক্ষণ কথা বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ’র সঙ্গে। প্রায় ১ ঘণ্টা বৈঠক হয়েছে সরকারের নম্বর ১ ও নম্বর ২-এর মধ্যে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার পরই নিরাপত্তা বিষয়ক ক্যাবিনেট কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেছেন মোদি। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং, বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর এবং অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ।