মিয়ানমারের সেনা শাসক আবারো ও বহুদলীয় নির্বাচন আয়োজনের প্রতিশ্রুতি শোনালেন

আবারো বহুদলীয় নির্বাচন আয়োজনের প্রতিশ্রুতি শোনালেন মিয়ানমারের সামরিক শাসক মিন অং হলাইং। রোববার (১ আগস্ট) টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এই কথা জানান।

মিন অং হ্লাইং বলেন, ‘মিয়ানমার আসিয়ানের বিশেষ প্রতিনিধির সঙ্গে সংলাপসহ আসিয়ান কাঠামোর মধ্যে থেকে জোটের সহযোগিতার বিষয়ে কাজ করতে প্রস্তুত।’

মিয়ানমারের সামরিক জান্তা ও বিরোধীদের মধ্যে আলোচনার ক্ষেত্র তৈরিতে একজন বিশেষ প্রতিনিধি চূড়ান্ত করার উদ্যোগ নিয়েছে আসিয়ান। সোমবার এ নিয়ে বসবেন জোটের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিকাল প্রিজনার্সের (এএপিপি) হিসাবে মিয়ানমারে অভ্যুত্থানের পর থেকে এ পর্যন্ত অন্তত ৬ হাজার ৯৯০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে মারা পড়েছে ৯৩৯ জন। তবে সামরিক বাহিনী এসব সংখ্যাকে মিথ্যা ও বানোয়াট বলে আসছে শুরু থেকেই।

অং সান সু চির নেতৃত্বাধীন গণতান্ত্রিক সরকারকে উৎখাত করে সামরিক বাহিনী ক্ষমতার নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার পর বিক্ষোভ নিয়ে হাজার হাজার মানুষ রাস্তায় নেমে আসে। বেসামরিক সরকারের হাতে ক্ষমতা ফিরিয়ে দিতে তারা প্রতিবাদ জানিয়ে আসছেন। বিক্ষোভে শিশুরাও অংশ নেয়।
সামরিক বাহিনীও নৃশংসভাবে সেই বিক্ষোভ দমন করছে। এতে বহু মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে।
অভ্যুত্থানে শিশুরা নির্বিচারে সহিংসতার মুখে পড়েছে। তাদের এলোপাতাড়ি গুলি করা হয়েছে এবং বিচারবহির্ভূতভাবে আটক করা হয়েছে। তাদের দিকে বন্দুক তাক করা হয়েছে, যেমন আচরণ তাদের বাবা-মায়ের সঙ্গেও করা হয়েছে।
দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশটিতে এভাবে হত্যার কঠোর নিন্দা জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। সেখানে বাড়িতে গিয়েও শিশুদের নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। মান্দালয়া শহরে ছয় বছর বয়সী একটি শিশুর পেটে গুলি করা হয়েছিল।
এ ছাড়া বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রে বড় ধরনের সংকট দেখা দেওয়ায় বিশেষজ্ঞরা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।