বাংলাদেশ:আল জাজিরা বন্ধের আবেদনে আইনজীবীদের মত শুনবে হাইকোর্ট

প্রতিবেদন:
বাংলাদেশে আল জাজিরার সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে সোমবার রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এনামুল কবির ইমন৷ এ বিষয়ে ছয় আইনজীবীর মতামত জানতে চেয়ে বুধবার এক আদেশ দিয়েছে হাইকোর্ট৷
আগামী সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) তাদের মতামত দিতে বলেছে হাইকোর্ট৷ বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এই আদেশ দেয়৷
ঐ ছয় আইনজীবী হলেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী, ফিদা এম কামাল, আব্দুল মতিন খসরু, কামাল উল আলম, প্রবীর নিয়োগী ও শাহদীন মালিক৷
অ্যামিচি কিউরি হিসেবে তারা রিট আবেদনটি গ্রহণযোগ্য কিনা এবং আদালত একটি আন্তর্জাতিক টেলিভিশন চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধের নির্দেশ দিতে পারে কিনা, সে বিষয়ে তাদের মতামত দেবেন৷
রিটে আল-জাজিরায় সম্প্রচারিত ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন’ প্রতিবেদনটি ইউটিউব, ফেসবুক ও টুইটার থেকে অপসারণের নির্দেশনাও চাওয়া হয় বলে জানিয়েছে বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে আল জাজিরার প্রতিবেদনকে ‘মিথ্যা ও মানহানিকর’ বলে আখ্যা দেয়৷ এতে বলা হয়, একটি গোষ্ঠী আল জাজিরাকে রাজনৈতিক ছক বাস্তবায়নের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করেছে৷
আর আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তরের (আইএসপিআর)-এর পাঠানো বিবৃতিতে প্রতিবেদনকে ‘সাজানো এবং দুরভিসন্ধিমূলক’ হিসেবে বর্ণনা করা হয়৷
আলজাজিরারপ্রতিবেদনেযাআছে

‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার’স মেন’ নামের ঐ প্রতিবেদনে আল জাজিরা সামি (ছদ্মনাম) নামের হাঙ্গেরিতে বসবাসরত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এক ব্যক্তির সহায়তায় হারিস আহমেদ নামের এক ‘আসামি’র পরিচয় উন্মোচন করে৷ হারিস বুদাপেস্টে ‘মোহাম্মদ হাসান’ নামে বসবাস করছিলেন৷ গোপন ক্যামেরায় ধারণকৃত সেই ব্যক্তির কথার ওপর ভিত্তি করে তারা ঘুস ও অবৈধ লেনদেনের মাধ্যমে বাংলাদেশে সরকারি ও রাজনৈতিক পদপদবি, কেনাকাটায় দুর্নীতির যোগসাজশের ইঙ্গিত দেয়৷

একইসঙ্গে সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদের সহোদর হওয়ায় ঐ ব্যক্তি তার উচ্চপর্যায়ের যোগাযোগকে ‘কাজে লাগিয়ে’ এসব অর্থ উপার্জন করেন বলে অভিযোগ তোলা হয়৷ আহমেদ পরিবারের বাকি সদস্যরাও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক আশীর্বাদপুষ্ট, এমন যোগসূত্র তৈরির চেষ্টা করা হয় প্রতিবেদনে৷

প্রতিবেদনে তৃতীয় যে বিষয়টি তুলে ধরা হয়, তা হলো, ইসরায়েলের একটি কোম্পানির কাছ থেকে ফোনের নজরদারির প্রযুক্তি কিনছে বাংলাদেশ৷ ‘পিকসিক্স’ নামের ঐ কোম্পানির সঙ্গে ২০১৮ সালে একটি চুক্তির দলিল হাজির করেছে আল জাজিরা৷ হাঙ্গেরিতে একজন আইরিশ মধ্যস্থতাকারীর সহযোগিতায় দুই ইসরায়েলির সঙ্গে একটি বৈঠকের কিছু অংশও তুলে ধরা হয়৷ পিকসিক্স প্রতিষ্ঠা করেছিল ইসরায়েলের কয়েকজন সাবেক গোয়েন্দা কর্মকর্তা৷ তবে ক্রয় চুক্তিতে সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী দেশের নাম বদলে হাঙ্গেরি উল্লেখ করা হয়েছে৷
জেডএইচ/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, ডয়চে ভেলে)