ডাকসুকে তারা ‘ডাকসুলীগে’ পরিণত করেছে, বললেন ভিপি নুর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদকে (ডাকসু) ডাকসুলীগে পরিণত করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ভিপি (সহ-সভাপতি) নুরুল হক নুর।

২৯ নভেম্বর উপাচার্যের বাসভবনে ভিপিকে না জানিয়েই ডাকসুর বৈঠক বসায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে তিনি বাংলাদেশ জার্নালকে এ মন্তব্য করেছেন। শুক্রবারের ওই সভায় গণরুমে বাংকবেড স্থাপন এবং ক্যাম্পাসের মধ্যে শিক্ষার্থীদের যাতায়াতের সুবিধার জন্য ব্যাটারিচালিত রিচার্জঅ্যাবল ইজিবাইক চালুর বিষয়ে ইতিবাচক আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে।

শনিবার ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, ডাকসুর বিভিন্ন সিদ্ধান্ত ছাত্রলীগের প্রতিনিধিরা এককভাবেই নিয়ে থাকেন। অনেক ক্ষেত্রেই তারা আমাকে কিছু জানান না। ডাকসুকে তারা ডাকসুলীগে পরিণত করেছেন।

গত মার্চে প্রায় তিন দশক পর চালু হওয়া ডাকসুতে ২৫টি পদের মধ্যে ২৩টিতেই ছাত্রলীগের নেতারা জয় পান। বাকি দুটি পদে সমাজসেবা সম্পাদকে আকতার হোসেন ও সহ-সভাপতি (ভিপি) পদে নুরুল হক নির্বাচিত হন। ফলে ছাত্রলীগের সংখ্যাগরিষ্ঠ এই ডাকসুতে নুরু-আকতার শুরু থেকেই কোনঠাসা অবস্থায় রয়েছেন।

গত শুক্রবার ডাকসুর ভিপি নুরুল হক ও সমাজসেবা সম্পাদক আকতারকে না জানিয়ে ছাত্রলীগ থেকে নির্বাচিত ডাকসু নেতারা উপাচার্য অধ্যাপক আক্তারুজ্জামানের সঙ্গে তার বাসভবনে বৈঠক করেন।

ভিপিকে না জানিয়ে বৈঠক করায় নুরুল হক উপাচার্যেরও সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, উপাচার্যের ভূমিকায় মনে হয়, তিনি শিক্ষার্থীদের উপাচার্য নন, বরং ছাত্রলীগের উপাচার্য। ডাকসুর সভাপতি নন, বরং ডাকসুলীগের সভাপতি।

ডাকসুর বৈঠকে কেন ভিপিকে রাখা হল না জানতে চাইলে ডাকসুর সহসাধারণ সম্পাদক (এজিএস) ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন পাল্টা প্রশ্ন তুলে বলেন, ভিপি নুরুল হক দুর্নীতির দায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন ও পেঁয়াজ নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। আমাদের না জানিয়েই তিনি খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন করছেন। তাহলে আমরা সভার বিষয়ে তাকে কেন জানাব?

তবে এ বিষয়ে ডাকসুর ভিপি বলছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের ভিপি হিসেবে শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অধিকার নয়, জাতীয় জীবনের সঙ্কট নিয়ে কথা বলার অধিকার আমার আছে। ছাত্রলীগ আমার এই অধিকারে হস্তক্ষেপ করতে পারে না।

ডাকসুর সভাপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ও ডাকসুর সভাপতি অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান জনিয়েছেন শুক্রবারের সভাটি কোনো আনুষ্ঠানিক সভা ছিল না। ডাকসুর সাধারণ সম্পাদক (জিএস) গোলাম রাব্বানী দুই দিন আগে উপাচার্যের সঙ্গে দেখা করতে চাইলে তিনি শুক্রবার তাদের সময় দেন এবং তখন তাদের সঙ্গে আলোচনা হয়।