রোহিঙ্গাদের নির্যাতনের বিচার করতে মিয়ানমারে কোর্ট মার্শাল

রোহিঙ্গাদের উপর চালানো নিষ্ঠুরতার ঘটনায় কোর্ট মার্শাল বা সামরিক আদালতে বিচার শুরু করেছে মিয়ানমার। সামরিক মুখপাত্রের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে এ নিশ্চয়তা দিয়েছে। ডয়েচে ভেলে

রোহিঙ্গাদের উপর চালানো গণহত্যার দায়ে গত ১১ নভেম্বর মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিস (আইসিজে) বা আন্তর্জাতিক আদালতে মামলা করেছে গাম্বিয়া। আগামী ১০ থেকে ১২ ডিসেম্বর এই মামলার শুনানি হবে। যাতে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচির উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

আন্তর্জাতিকভাবে বিচারের এই উদ্যোগ নিজেদের সার্বভৌমত্তে¡র প্রতি হুমকি হিসেবে অভিহিত করে মিয়ানমার বলছে তারা নিজেরাই অভিযোগগুলো তদন্ত করবে। যার প্রেক্ষাপটেই কোর্ট মার্শালের কথা জানালো দেশটি। রয়টার্সকে সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র জাও মিন তুন বলেন, গু দার পিন নামের একটি গ্রামে নিয়োজিত সৈন্য ও কর্মকর্তারা যথাযথভাবে সামরিক নির্দেশ পালন করেনি।এ বিষয়ে সামরিক বাহিনী তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিবৃতিতে বলেছে, গু দার পিনে দুর্ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে সামরিক আইনে বিচার করা হচ্ছে।

২০১৭ সালে একটি গ্রামে ১০ রোহিঙ্গাকে হত্যার দায়ে সাত সৈন্যকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয় হয়। তবে এক বছরের কম সময়ের তাদের মুক্তি দেয়া হয়েছিলো। সম্পাদনা:রাশিদ