খুলনা ও রাজশাহীতে সড়ক অবরোধ পাটকল শ্রমিকদের বিক্ষোভ

খুলনা ও রাজশাহীতে সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করেছেন পাটকল শ্রমিকরা। সোমবার সকাল ১০টার দিকে বিক্ষোভ করে।রাজশাহীতে জাতীয় মঞ্জুরী কমিশন বাস্তবায়নসহ ১১ দফা দাবিতে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছেন পাটকল শ্রমিকরা। কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার (২৫ নভেম্বর) মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার সকালে কাটাখালী জুটমিলের মেইন গেট থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন পাটকল শ্রমিকরা।

এরপর শ্রমিকরা রাজশাহী জুটমিলের গেটে ঘণ্টাব্যাপী অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ সামবেশ কর্মসূচি পালন করেন। এদিকে খুলনায় রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের ডাকা ভুখা মিছিল করেছেন শ্রমিকরা। সংগ্রাম পরিষদের ডাকা ছয়দিনের কর্মসূচির মধ্যে সোমবার (২৫ নভেম্বর) প্রথম দিন সকাল ১০টার দিকে শ্রমিকদের ভুখা মিছিলে ভারী হয়ে ওঠে খুলনা শিল্পাঞ্চলের আকাশ-বাতাস।
এদিকে খুলনায় রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের ডাকা ভুখা মিছিল করেছেন শ্রমিকরা। সংগ্রাম পরিষদের ডাকা ছয়দিনের কর্মসূচির মধ্যে সোমবার (২৫ নভেম্বর) প্রথম দিন সকাল ১০টার দিকে শ্রমিকদের ভুখা মিছিলে ভারী হয়ে ওঠে খুলনা শিল্পাঞ্চলের আকাশ-বাতাস।

পাটকল শ্রমিকদের মজুরী কমিশন বাস্তবায়ন, পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপ (পিপিপি) বাতিল, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক, কর্মচারী ও কর্মকর্তাদের পিএফ গ্র্যাচ্যুইটির টাকা প্রদান, শ্রমিকদের সাপ্তাহিক মজুরী নিয়মিত পরিশোধ, পাট মৌসুমে পাট কেনার অর্থ বরাদ্দসহ শ্রমিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট ১১ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

সোমবার সকালে খুলনার ৯টি পাটকলের মিলগেটে জড়ো হন শ্রমিকরা। সেখানে গেট সভা শেষে শুরু হয় ভুখা মিছিল। খালিশপুর বিআইডিসি সড়ক প্রদক্ষিণ করে নতুন রাস্তা হয়ে স্ব স্ব মিল গেটে শেষ হয় এ ভুখা মিছিল।

এর আগে পাটকল শ্রমিকদের মজুরী কমিশন বাস্তবায়ন, পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপ (পিপিপি) বাতিল, অবসরপ্রাপ্ত শ্রমিক, কর্মচারি ও কর্মকর্তাদের পিএফ গ্রাচ্যুইটির টাকা প্রদান, শ্রমিকদের সাপ্তাহিক মজুরী নিয়মিত পরিশোধ, পাট মৌসুমে পাট ক্রয়ের অর্থ বরাদ্দসহ শ্রমিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট ১১ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে। গত ১৭ নভেম্বর ঢাকায় বৈঠক করে রাষ্ট্রায়ত্ত জুট মিল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের নেতারা এ কর্মসূচি গ্রহণ করেন।