মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিমানের ধাঁচে তৈরি হচ্ছে মোদীর নতুন বিমান

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টরা যে বিমানে চড়েন তার ধাঁচে নতুন বিমান তৈরি হচ্ছে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জন্য। মার্কিন প্রেসিডেন্টরা যে কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ‘এয়ার ফোর্স ওয়ান’ নিয়ে আকাশ সফর করেন, তেমন সুরক্ষার বলয় চাইছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রীও। স্থানীয় গণমাধ্যমে সূত্রের বরাত দিয়ে বলা হচ্ছে, কার্যত প্রধানমন্ত্রীর দফতরের ছোট সংস্করণ উঠে আসবে নতুন বিমানটিতে। থাকবে দুনিয়ার সকল প্রান্তে যোগাযোগের ব্যবস্থা। কিন্তু বিমানটি তৈরিতে বিপুল পরিমাণ অর্থ খরচ করছে ভারত সরকার। এই অর্থ খরচ আদৌ প্রয়োজন ছিল কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই।
ভারতীয় গণমাধ্যম অনুসারে, কেবল ভারতের প্রেসিডেন্ট, ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সফরের জন্য একজোড়া বিশেষ বিমান তৈরি করছে মার্কিন বিমান নির্মাতা সংস্থা বোয়িং। ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ে সেগুলো হাতে পাবে ভারত। বোয়িং-৭৭৭ সিরিজের ওই বিমানে থাকবে এসপিএস এবং এলএআইআরসিএম প্রযুক্তি।
যা আকাশে আচমকা ক্ষেপণাস্ত্র হানা থেকে সুরক্ষা দেবে। এর আগে অন্যকোনো দেশকে এই প্রযুক্তি বিক্রি করেনি যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রতিরক্ষা দফতরের তথ্য অনুযায়ী, ১৯ কোটি ডলারের বিনিময়ে ভারতের কাছে প্রযুক্তিটি বিক্রি করা হয়েছে।
ভারতের নতুন দু’টি ‘ভিভিআইপি’ বিমানের নির্মাণ ও উড়ার খরচ কেমন হতে পারে, তা এখনো অজানা। কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্টের বিমানের বিপুল খরচ দেখে অনেকেই সে ব্যাপারে প্রশ্ন তুলছেন। মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমানটির প্রতি ঘণ্টা উড়ার খরচ প্রায় ২ লাখ ডলার। ভারতের অর্থনীতিতে টান পড়ছে। সম্প্রতি তথ্য অধিকার আইনে করা এক প্রশ্নে দেখা গিয়েছিল, দেনার দায়ে ধুঁকতে থাকা এয়ার ইন্ডিয়ার কাছে কেন্দ্রীয় সরকারের বকেয়া রয়েছে ১,১৪৬ কোটি রুপি। তা সত্ত্বেও এত খরুচে বিমান আনা ঠিক হচ্ছে কিনা, তা নিয়ে সরকারের সমালোচনা করেছেন অনেকে।