শোষন ও বৈষম‍্যহীন সমাজ ব‍্যাবস্থা প্রতিষ্টা না হওয়া পর্যন্ত”ম আ মুক্তাদিরের আত্মা শান্তি পাবেনা

বীর মুক্তিযোদ্ধা ও প্রগতিশীল আন্দোলনের নেতা,এবং সকলের সুপরিচিত ব্যাক্তিত্ব জনাব ম আ মুক্তাদির স্বরনে ইস্ট লন্ডনের একটি হলে বরাবরের মত এবার ও ২১ তম মৃত্যু বার্ষিকী স্বরনে আলোচনা ও দুয়া মহফিল অনুষ্টিত হয়।
জনাব মাহমুদুল হাসান MBE র সভাপতিত্বে ও জনাব গয়াছুর রহমানের সঞ্চালনায় সমাজের বিভিন্ন স্তরের লোকজন এবং তার রাজনৈতিক জীবনের অনেক সাথীদের সাথে দেখা হয় । তিনি বাংলাদেশের রাজনীতির পাশাপাশি যুক্তরাজ‍্যের রাজনীতি ও কমিউনিটির বিভিন্ন দাবী দাওয়া নিয়ে আন্দোলনে যোগদেন। এর মধ‍্যে অত‍্যতম ছিল ইস্ট লন্ডনের ,ব্রিকলেন ভিত্তিক’ বাংলা টাউন প‍্রতিষ্টার আন্দোলন। কতৃপক্ষ বাধ‍্য হন বাংলাটাউনের স্বীকৃতি দিতে। আজ যে বাংলাটাউন আমাদের সামনে দাড়িয়ে আছে,তার আন্দোলনে যারা যোগ ও নেতৃত্ব দিয়েছিল,তার মধ‍্যে মুক্তাদির ছিলেন একজন।তিনি ছিলেন একজন সমাজতান্ত্রিক সমাজ প্রতিষ্ঠার সৈনিক। একটি সমাজতান্ত্রিক সমাজ প্রতিষ্টার জন‍্য তার সংগ্রাম ছিল অবিরাম।
যুগে যুগে বিভিন্ন দেশে অনেক বিপ্লবীর জন্ম হয় ,তার মধ‍্যে মুক্তাদির ছিলেন বাংলাদেশের একজন অন‍্যতম বিল্পবী ,তিনি অল্প বয়সেই বাংলাদেশের স্বাধিনতা যুদ্ধে যোগ দেন। যে যুদ্ধে ৩০ লক্ষ মানুষ আত্মাহুতি এবং ২ লক্ষ মা-বোনের ইজ্জ্বত দিতে হয়েছিল।
স্বরণ সভায় অনেকেই উপস্থিত হয়ে বক্তব্য রাখেন, তার মধ‍্যে বেতার বাংলার সি ই ও নাজিম চৌধুরী,ফ্রান্কফুট থেকে আগত রাজনীতিবিদ ও সাংবাদিক হাবিব বাবুল,কমিউনিটি ব‍্যাক্তিত্ব ও সাংবাদিক নজরুল ইসলাম বাসন,জেএসডির সভাপতি ও সাংবাদিক আল্হাজ্ব ছমির উদ্দিন,সাহিত্যিক ও ছড়াকার মুজিবুল হক মুনি,জাসদের আবুল মনসূর লিলু,রেদওয়ান খান,মাহমুদুর রহমান (শাহনুর), রাজনীতিবিদ আব্দুল মালেক খোকন,,মোঃশওকত,কাউন্সিলার তারেক খান,প্রাক্তন কাউন্সিলার শাহেদ আলী?কাউন্সিলার সাদ চৌধুরী,বজলুল হক,ন্যাপের আং আজিজ,প্রাক্তন মেয়র গোলাম মতূজা ও সেলিম উল্লাহ,ফখর উদ্দিন চৌধুরী,কবি নজরুল ইসলাম?জনাব বুলবুল চৌধুরীসহ আরও অনেকেই।
সকলেই মরহুম মুক্তাদিরের কর্মময় ঝীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন।
দুয়া পরিচালনা করেন,মওলানা আং কুদ্দুছ।তিনি তার দুয়ায় মুক্তাদিরসহ সকলের মাগফেরাতের দুয়া কামনা করেন।
গত বতসর যে সমস্ত ব‍্যাক্তিবর্গ ট্রাষ্টি হয়েছিলেন সভাশেষে ট্রাস্টিদেরকে সাটিফিকেট প্রদান করা হয়,।