আওয়ামী লীগ-যুবলীগ নেতাদের ঘর এখন টাকশাল বানানো হয়েছে, বললেন রিজভী

হরিলুটে গোটা দেশটা ফাঁপা ফোঁকলা হয়ে গেছে।বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো সব দেউলিয়া। বিদেশে লাখ লাখ কোটি টাকা পাচার করছে।পাচারের পর উদ্বৃত্ত টাকা থেকে যাচ্ছে ঘরে। দেশটাই দেউলিয়া করে দিচ্ছে বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর পিতার আক্ষেপের সেই ‘চাটার দল’। এ মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রহুল কবির রিজভী।

সোমবার রাজধানীর নয়াপল্টনে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির এ নেতা বলেন, সরকারি দলের অংগসংগঠনের চুনোপুঁটি নেতারা আঙ্গুল ফুলে একেকটা বটগাছ হয়ে গেছে। ক্ষমতাসীন যুবলীগের নেতারা ঢাকায় চালাচ্ছে ৬০টি ক্যাসিনো।ঢাকার বাইরেও রয়েছে আরও অসংখ্য ক্যাসিনো। যেখানে প্রতিরাতে শত শত কোটি টাকা উড়ছে জুয়ার টেবিলে। মাদকের ব্যবসা চলছে দেদারছে। এর পাশাপাশি অবৈধ নাইট ক্লাব, পানশালা, বাগানবাড়ি, এমনকি তাদের ঘরে ঘরে জুয়া ও মাদকের আসর বসছে।

রিজভী অভিযোগ করেন, ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ফুটবল ক্লাবগুলো দখল করে তারা জুয়া আর ক্যাসিনো ক্লাবে পরিণত করেছে ক্ষমতাসীন রাঘববোয়াল এমপি-মন্ত্রীরা। এসব জুয়ার ক্লাব থেকে আয়ের একটা অংশ চলে যায় নানান হাত ঘুরে সরকারের শীর্ষ পর্যায়ে। এ টাকার একটি বড় অংশ হুন্ডির মাধ্যমে চলে যায় বিদেশে। এছাড়া পাড়ায় পাড়ায় আওয়ামী সন্ত্রাসীরা টর্চার সেল তৈরি করে সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ীদের ধরে নিয়ে আদায় করে মোটা অংকের টাকা।

তিনি বলেন, ব্যাংকে টাকা না থাকায় এখন সরকারি, আধাসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তহবিলে হাত দেয়া হয়েছে।এই অবস্থায় একটি ইতিবাচক আলোচনায় থাকতে দুর্নীতি-অনাচারের বিরুদ্ধে আকষ্মিক অভিযান আইওয়াশ কিনা এ নিয়ে জনমনে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে। কারণ লোক দেখানো এ অভিযানে অধরাই থেকে যাচ্ছেন মাদক ও দুর্নীতিবাজদের গডফাদাররা। কারণ এবারের আওয়ামী আমলে সমগ্র বাংলাদেশটাই ডন গডফাদারদের কব্জায়।