রাষ্ট্রপতি হতে চাইলে স্কুলছাত্রকে বললেন মোদী প্রধানমন্ত্রী কেনো নয়!

চন্দ্রায়ণ -২এর চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ দেখতে আসা স্কুল পড়ুয়াদের সঙ্গে কথা বলছিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ভারতের ৭০টি স্কুলের পড়ুয়ারা দেশটির মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরোর সদর দফতরে হাজির হয়েছিল। চন্দ্রায়ণ-২ এর ল্যান্ডারের সঙ্গে ইসরোর যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার পর, পড়ুয়াদের মন খারাপ না করতে বললেন মোদী। তাদের মধ্যেই একজন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে রাষ্ট্রপতি হওয়ার জন্য পরামর্শ চান, হাসিমুখে প্রধানমন্ত্রী জানতে চান, কেন সে প্রধানমন্ত্রী হতে চায় না। ওই পড়ুয়া বলে, “আমি ভারতের রাষ্ট্রপতি হতে চাই, আমায় কী করতে হবে”? আশেপাশের অন্যরা তখন মিটমিট করে হাসছিলেন।

একজন পড়ুয়াকে প্রধানমন্ত্রী মোদী জিজ্ঞেস করেন, “মানুষকে ফিরে গিয়ে তুমি কী বলবে”। ওই পড়ুয়া উত্তর দেয়, চন্দ্রায়ণের ল্যান্ডার বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না।

বিস্তারিত কথোপকথনের সময় পড়ুয়াদের প্রধানমন্ত্রী বলেন, “মন দিয়ে পড়াশোনা করো, কঠোর পরিশ্রম করো এবং জীবনে কোনওকিছু পেতে আত্মবিশ্বাস রাখো”।

এসময় সেখানে উপস্থিত ভুটানের পড়ুয়াদের সঙ্গেও বিস্তারিত কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাদের জিজ্ঞাসা করেন, ভারতের সঙ্গে তাদের বন্ধুত্ত্ব তৈরি হয়েছে কিনা। ইসরো ছাড়ার আগে সমস্ত পড়ুয়াকে অটোগ্রাফ এবং তাদের সঙ্গে ছবি তোলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

প্রধানমন্ত্রী পড়ুয়াদের আরও বলেন, “জীবনে বড় লক্ষ্য রাখো এবং লক্ষ্যকে ছোটো ছোটো করে ভাগ করে। ছোটো ছোটো লক্ষ্যগুলো পূরণের চেষ্টা করো। যা পাওনি তা ভুলে যাও, তা ভেবে কখনও দুঃখ পেও না”।

গতমাসে একটি ক্যুইজ প্রতিযোগিতায় পাশ করার পর, এসব স্কুলপড়ুয়াদের চন্দ্রাভিযানের লাইভ দেখার ছাড়পত্র দেওয়া হয়।