চাকরি দেয়ার কথা বলে ৩৭ জনের কাছ থেকে ১ কোটি ১১ লাখ আত্মসাৎ

চাচার সঙ্গে প্রতারণা করে এক কোটি ১১ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে ভাতিজা। এই অভিযোগ সম্প্রতি রাজধানীর কাফরুল থানায় মামলা করেছেন চাচা। মামলার বিবরণ অনুযায়ী পাসপোর্ট অধিদপ্তরে চাকরি দেয়ার কথা বলে চাচার মাধ্যমে ৩৭ জন আত্মীয়-স্বজন ও পাড়া-প্রতিবেশীর ওই টাকা নিয়েছে ভাতিজা। পরে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে চম্পট মেরেছে সে। ডিবিসি, ৯

২০১৫ সালে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের এএমএলএসএস পদে অস্থায়ী চাকুরি নেন নোয়াখালীর আবু জাহেদ নয়ন। এক বছর পর অনিয়ম ও জালিয়াতির কারণে তাকে বহিষ্কার করে কর্তৃপক্ষ। ওই চাকুরির সুবাদে ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের কয়েক কর্মকর্তার নাম ভাঙ্গিয়ে সম্প্রতি নোয়াখালীতে বসবাসরত চাচা আবুল খায়েরকে তার পরিবারের সদস্যদের চাকুরি দেয়ার কথা বলে কয়েক লাখ টাকা নেয় নয়ন। কয়েকদিন পর চাচার মাধ্যমে পাড়া-প্রতিবেশিদের থেকেও টাকা নেয় সে। চাকুরি প্রার্থীদের নামে নিয়োগপত্র পাঠিয়ে দেয় নয়ন। তা নিয়ে বিভিন্ন আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে যোগদান করতে গেলে ভুক্তভোগীরা জানতে পারেন, নিয়োগপত্রগুলো ভুয়া।

এরপর থেকেই হদিস নেই নয়নের। প্রতারণার জন্য ভাতিজার বিরুদ্ধে রাজধানীর কাফরুল থানায় মামলা করেন চাচা আবুল খায়ের।
এ বিষয়ে ডিএমপির উপ-কমিশনার মোস্তাক আহমেদ বলেন, আমরা তদন্ত শুরু করে দিয়েছি। আমাদেরকে যেসব কাগজপত্র দেয়া হয়েছে সেগুলো আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছি। চাকুরির জন্য লেনদেন না করে নিয়োগকর্তা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে খোঁজ নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে পুলিশ।

সম্পাদনা : রাশিদুল