সব আদালতের এজলাস কক্ষে বঙ্গবন্ধুর ছবি টানানোর নির্দেশ

সুপ্রিম কোর্টসহ দেশের সব আদালতের এজলাস কক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি টানানো, প্রদর্শন এবং সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আগামী দুই মাসের মধ্যে দেশের সব আদালত কক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ছবি টানানোর পরে এ ব্যাপারে হাইকোর্টে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে। আইন মন্ত্রণালয়, হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার, অর্থ মন্ত্রণালয়, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়কে এ আদেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) এ সংক্রান্ত রিটের প্রাথমিক শুনানিতে হাইকোর্টের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও কেএম কমরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আইনজীবী অ্যাডভোকেট সুবীর নন্দী দাসের করা এক রিট আবেদনের ওপর প্রাথমিক শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) হাইকোর্টের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও কেএম কমরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

রিট আবেদনকারী নিজেই শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এবিএম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

আদালত অন্তবর্তীকালীন নির্দেশনার পাশাপাশি রুল জারি করেন। রুলে দেশের প্রতিটি আদালতের এজলাস কক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি সংরক্ষণ ও প্রদর্শনে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তাও জানতে চাওয়া হয়েছে। আইন, গণপূর্ত ও অর্থ সচিব, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল ও হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রারসহ সংশ্লিষ্টদেরকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস বলেন, সংবিধানের ৪(ক) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার ও প্রধান বিচারপতির কার্যালয় এবং সব সরকারি ও আধা-সরকারি অফিস, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, সংবিধিবদ্ধ সরকারি কর্তৃপক্ষের প্রধান ও শাখা কার্যালয়, সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিদেশে অবস্থিত দূতাবাস ও মিশনগুলোতে সংরক্ষণ ও প্রদর্শন করতে হবে।

তিনি বলেন, ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে তাদের জাতির জনকের ছবি অফিস আদালতে রয়েছে। এটা প্রদর্শন ও সংরক্ষণে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ কারণেই আমাদের দেশে জাতির জনকের প্রতিকৃতি প্রদর্শনের জন্য রিট আবেদন করি।

ওই রিটের শুনানি নিয়ে সুপ্রিম কোর্টসহ দেশের সব আদালত কক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি (প্রতিকৃতি) টানানোর (সংরক্ষণ ও প্রদর্শন) নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে, আদেশ বাস্তবায়ন করে দুই মাসের মধ্যে অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করতে বিবাদীদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার বলেন, আইন অনুসারে কেবল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান তথা উপাসনালয় ছাড়া জাতির জনকের প্রতিকৃতি সব প্রতিষ্ঠানে প্রদর্শন ও সংরক্ষণ করতে হবে।

তিনি বলেন, আইন প্রণেতারা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ছাড়া কাউকে বাদ দেয়নি। এ কারণে আদালত কক্ষেও জাতির জনকের প্রতিকৃতি প্রদর্শন করতে হবে।

এফএইচ/এএইচ/জেআইএম