শহীদ মিনারে মোজাফফর আহমদের মরদেহ, জেএসডি’র শ্রদ্ধা।

জাতীয় শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় সিক্ত হলেন মুক্তিযুদ্ধকালীন সরকারের উপদেষ্টা এবং ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) একাংশের সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ। শনিবার (২৪ আগস্ট) দুপুর ১২টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে তার মরদেহ আনা হয় সর্বসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য।
এসময় অধ্যাপক মোজাফফর আহমদকে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ,
জাতীয় সসমাজতান্ত্রিক দল- জেএসডি,
বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিব), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), ওয়ার্কার্স পার্টি, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), গণসংহতি আন্দোলন, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, কেন্দ্রীয় খেলাঘর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, বাম গণতান্ত্রিক জোট, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জেএসডি), বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র (টিইউসি), জাতীয় জাদুঘর, বাংলাদেশ কবিতা পরিষদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট, আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তানসহ বিভিন্ন সংগঠনের সদস্য এবং সাধারণ মানুষ।

এসময় অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের মরদেহ ফুলে ফুলে ভরে যায়।
অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য এক মিনিট নিরবতা পালনের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করা হয়।
এর আগে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের প্রথম নামাজে জানাজা বেলা ১১টায় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় প্রধানমন্ত্রী, স্পিকারসহ অনেকেই অংশগ্রহণ করেন।
এরপর ন্যাপ কার্যালয়ে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের মরদেহ তার সহযোদ্ধাদের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য রাখা হয়।
কেন্দ্রীয় শহীদ মোজাফফর আহমদের মরদেহ শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বায়তুল মোকাররম মসজিদে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে বাদ আসর তার দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।
রোববার (২৫ আগস্ট) কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা নিজ গ্রামে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের দাফন সম্পন্ন করা হবে।
অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ শুক্রবার (২৩ আগস্ট) রাত পৌনে ৮টার দিকে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো ৯৭ বৎসর।