গোসলখানায় উঁকি, ক্ষোভে আত্মহত্যা প্রবাসীর স্ত্রীর

সদর উপজেলার টামটা উত্তর ইউপি’র উয়ারুক গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। গত রোববারের এঘটনায় গৃহবধূর শাশুড়ি বাদী হয়ে মো. হাসান (২২) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছেন।

ভুক্তভোগী গৃহবধূর পরিবার ও অভিযোগ সূত্র জানায়, গত তিনবছর আগে ওই বাড়ির মৃত ইউসুফ পাটোয়ারীর ছেলে তৌকির আহমেদ রনি (৩০) একই ইউপি’র রাঢ়া গ্রামের মশিউর রহমানের মেয়ে জান্নাতুল নাঈম সুখীকে (২২) বিয়ে করেন। বিয়ের ১ মাসের মাথায় স্বামী রনি জীবিকার প্রয়োজনে সৌদি আরবে পাড়ি জমান। এদিকে একই বাড়ির হারুন পাটোয়ারীর ছেলে মো. হাসানের কুদৃষ্টি পড়ে সুখীর দিকে।

ঈদের আগের দিন তার শাশুড়ি পারুল বেগম (৪৫) ও জা আকলিমা বেগমসহ হাজীগঞ্জ বাজারে কেনাকাটা করতে যান। এই সুযোগে থাকা হাসান গোঁসল করার সময় সুখীর শরীরের স্পর্শকাতর অঙ্গ উঁকি মেরে দেখতে থাকে। বিষয়টি সুখী টের পেয়ে নিজেকে গুটিয়ে নিয়ে ঘরে গিয়ে কান্নাকাটি শুরু করে। এর কিছু সময় যেতে না যেতেই হাসান স্থানীয় বখাটেদের মাঝে বিষয়টি ছড়িয়ে দেয়। ওই সংবাদ সুখীর কানে এলে সে প্রবাসী স্বামী রনিকে সব কথা সরল বিশ্বাসে বলেন। ওই কথা মুঠোফোনে জেনে স্বামী রনি চটে গিয়ে স্ত্রীর সাথে বিবাদে জড়িয়ে পড়েন।

এদিকে বিষয়টি জেনে পারুল বেগম দ্রুত বাড়িতে ছুটে আসেন। এসে দেখতে পান তার ঘরের আড়ার সাথে সুখী ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছে। তার চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে তাকে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

জান্নাতের শাশুড়ি পারুল বেগম জানান, হাসান আমার ছেলের স্ত্রীকে বিভিন্ন সময় খারাপ কথা বলতো এবং কুপ্রস্তাব দিতো।

শাহরাস্তি থানার এসআই মোজাম্মেল জান্নাতের মরদেহ উদ্ধার করে, চাঁদপুর মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে ঈদের দিন বাদ আসর সুখীর জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

শাহরাস্তি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ্‌ আলম জানান, অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে।