২২ ঘণ্টায় ১ লাখ ৮৬ হাজার টাকা খরচ করেও বাঁচানো গেলো না ঢাবি ছাত্র ফিরোজকে

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ফিন্যান্স বিভাগের ২০১৩-১৪ সেশনের শিক্ষার্থী ফিরোজ কবীর স্বাধীনের (২৫) মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
রাজধানীর ওই হাসপাতালে ভর্তি হয়ে ২২ ঘণ্টায় ১ লাখ ৮৬ হাজার ৪৯২ টাকা খরচ হয়েছে ফিরোজের পেছনে। মাত্র ২২ ঘণ্টায় এই পরিমাণ টাকা ব্যয়ের ক্যাশমেমোটি ইতিমধ্যে সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। আর তাই নিয়ে শুরু হয়েছে ক্ষোভ।

অনলাইন পোর্টাল বিবার্তার সম্পাদক বাণী ইয়াসমিন হাসি লিখেছেন তার ক্ষোভের কথা। তার ফেসবুক স্ট্যাটাস হুবহু তুলে ধরা হলো, ‘ফিরোজকে স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ২৫তারিখ রাত ১১.২২ টায়। ফিরোজ মারা গেছে ২৬তারিখ রাত ৯.১০ মিনিটে (ডাক্তারের ভাষ্যমতে)। ২২ ঘন্টার ও কম সময়ে বিল আসছে ১লক্ষ ৮৬ হাজার টাকা। রক্তের ক্রসম্যাচ দেখানো হয়েছে সেটা হয়নি। ঔষধ বাবদ দেখানো হয়েছে ৩২ হাজার টাকা অথচ ডাক্তার বললো স্যালাইনের কথা ও ঢাকা মেডিকেলের নরমাল কিছু ঔষধের কথা যেটা সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা হতে পারে। পরীক্ষা না করিয়েই টাকা, বেড ভাড়া দুদিনের যেখানে হোটেলের মতো চেক আউট সিস্টেম এ্যাপ্লাই করা হয়েছে। স্কয়ার হাসপাতাল চিকিৎসার নামে বানিজ্য করছে। নিচের ছবিগুলো দেখেন। খালি চোখেও এদের জোচ্চুরিটা ধরতে পারবেন। আমি মেয়র সাঈদ খোকন এবং স্কয়ার হাসপাতালের বিরূদ্ধে মামলা করতে চাই।’

এই কথাগুলোর সঙ্গে তিনি কয়েকটি চারটি ছবিও আপলোড করেন। যেখানে ড্রাফট বিল, ফিনান্সিয়াল স্টেটম্যান্টের বিস্তারিত খরচ লেখা ছিলো।
ঢাবি প্রতিনিধি জানান, ফিরোজ গত এক সপ্তাহ যাবত ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিউতে ভর্তি ছিলেন। গত বৃহস্পতিবার সেখান থেকে তাকে স্থানান্তর করা হয় স্কয়ার হাসপাতালে। পরে শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়।