বিশিষ্ট ব‍্যাবসায়ী ও কমিউনিটি ব‍্যাক্তিত্ত্ব জনাব আজমল হোসেনের সাথে বাংলাদেশ থেকে আগত কয়েকজনের সাথে লাঞ্চ সম্পন্ন

ব্রিকলেনের বিশিষ্ট ব‍্যাবসায়ী এবং কমিউনিটি ব‍্যাক্তিত্ত্ব জনাব আজমল হোসেনের সাথে বাংলাদেশ থেকে আসা কিছু সংখ‍্যক সরকারী কাজের লোকজনে সাথে দেখা হলে ,তিনি তাদেরকে তার নিজস্ব রেষ্টোরেন্ট প্রিমে লাঞ্চ করার নিমন্ত্রন জানান। তারা জনাব আজমল হোসেনের নিমন্ত্রন সাদরে গ্রহন করেন।
লাঞ্চে উপস্থিতিদের মধে‍্য জনাব আজমল হোসেন ,তিনির কয়েকজন স্টাফ এবং আগত অতিথির মধে‍্য ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সেক্রেটারী জনাব ইহসানূল করিম,ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারী কে.ম.সাখাওত মূন,প্রধানমন্ত্রীর অফিসের প্রোটকল অফিসার জনাব মোহাম্মদ আবু জাফর রাজুসহ অন‍্যান‍্যরা।
জনাব আজমল হোসেন একজন স্বহর্দয় ব‍্যাক্তি ও বিশিষ্ট ব‍্যাবসায়ী,এবং তার ব‍্যাবসায়ের প্রতিষ্টানীক অফিস ব্রিকলেনে অবস্থিত।
ব্রিটেনে বাংলাদেশী লোকের পরিমান তূলনামূলক অনেক বেশী,নিজেদের ব‍্যাক্তিগত ও ব‍্যাবসায়ীক জিনিসপত্র কিনতে ব্রিটেনসহ ইউরোপের অন‍্যান‍্য দেশের লোকজনকে ব্রিকলেনেই আসতে হয়। স্থানীয় টাওয়ার হেমলেটস কাউন্সিলের সহযোগিতায় এবং বাংলাদেশী লোকের প্রচেষ্টার ফলাফলে এই ব্রিকলেন এলাকার নতুন নাম হল বাংলা টাউন।
সাধারন লোকেরা বলাবলি করে বাংলাদেশের ২য় ক‍্যাপিটেল হল ব্রিকলেন। অনেক ত‍্যাগের ফলে বাংলাদেশীরা এই নামটুকু অর্জন করতে পেরেছে।
বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে ও এই ব্রিকলেন অবদান রেখেছে অপরিসম।
টাওয়ার হেমলেটস কাউন্সিলের ৪৫ জন কাউন্সিলারদের মধে‍্য বাংলাদেশী আছে ৪০ জন ,সে সাথে বাংলাদেশী ৩ জন এমপির মধে‍্য ব্রিকলেনে আছে ১ জন,ভবিষ‍্যতে আর ও বেশী হওয়ার আশা আছে।