নারায়ণগঞ্জে ১২ ছাত্রী নিপীড়নে মাদ্রাসাশিক্ষক আটক

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় ১২ ছাত্রীকে নিপীড়নের অভিযোগে মাওলানা মো. আল আমিন নামে সেই মাদ্রাসাশিক্ষককে আটক করেছে র‌্যাব-১১।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ফতুল্লার মাহমুদপুর পাকারমাথা এলাকায় ‘বায়তুল হুদা মাদ্রাসা’ থেকে তাকে আটক করা হয়।

আটক মো. আল আমিন ‘বায়তুল হুদা মাদ্রাসার’ প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক ছিল। আটকের সময় তার মোবাইল ও অফিসের কম্পিউটার থেকে অনেক পর্নো ভিডিও জব্দ করা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে র‌্যাব-১১ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আলেপ উদ্দিন (পিপিএম)।

তিনি জানান, মাদ্রাসার দ্বিতীয় থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ১২ ছাত্রী ওই শিক্ষকের যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এ কারণেই মো. আল আমিনকে আটক করা হয়েছে।

র‌্যাব কর্মকর্তা মো. আলেপ উদ্দিন আরও জানান, সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের একটি বেসরকারি স্কুলের শিক্ষক সিরিয়াল রেপিস্ট আশরাফুল আরিফকে গ্রেফতারের ঘটনায় টেলিভিশনে প্রচারিত একটি সংবাদের ভিডিও ক্লিপ তার ফেসবুক ওয়ালে আপলোড করেছিলেন।

২ জুলাই বাইতুল হুদা ক্যাডেট মাদ্রাসার তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী এবং তার মা ফেসবুকে ভিডিওটি দেখেছিলেন। এ সময় হঠাৎ ভিডিওটি দেখে ওই মাদ্রাসাছাত্রী তার মাকে বলে, মা আমাদের হুজুরকে কেন গ্রেফতার করে না র‍্যাব, আমাদের হুজুরও আমাদের সঙ্গে এ রকম করে। আমার ওই মাদ্রাসায় যেতে ভালো লাগে না। আমি মাদ্রাসায় আর যাব না।

পরে বিষয়টি ওই মেয়ের মা র‍্যাব কর্মকর্তার সঙ্গে শেয়ার করেন। পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলেপ উদ্দিন ঘটনাস্থলে এসে ওই মেয়ের জবানবন্দি নেন এবং মেয়েকে কৌশলে মাদ্রাসায় পাঠিয়ে তারা শিক্ষককে আটক করেন।

এর আগে গত ২৮ জুন ২০ ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে সিদ্ধিরগঞ্জের অক্সফোর্ড কিন্ডারগার্টেন স্কুলের সহকারী শিক্ষক আরিফুল ইসলামকে গ্রেফতার করা হয়।