এখন থেকে ইউরোপের সমানতালে পদক্ষেপ নেব, ইইউকে ইরান

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, এখন থেকে তার দেশ ইউরোপীয় দেশগুলোর গৃহিত পদক্ষেপের সঙ্গে সমন্বয় রেখে পরমাণু সমঝোতা রক্ষার পদক্ষেপ নেবে। ইরানে সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের মজুদ বৃদ্ধিতে উদ্বেগ প্রকাশ করে ইইউ এক বিবৃতি প্রকাশ করার পর মঙ্গলবার রাতে জাওয়াদ জারিফ এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করেন।

টুইটে জারিফ বলেন, ‘তিন ইউরোপীয় দেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন যতদিন ইরানের সঙ্গে আর্থিক লেনদেন সংক্রান্ত প্রতিশ্রুতি মেনে চলবে ততদিন পরমাণু সমঝোতার পূর্ণাঙ্গ বাস্তাবায়ন নিশ্চিত করবে তেহরান।’ জারিফ তার পোস্টে আরো বলেন, ‘এই মুহূর্ত থেকে ইরান পরমাণু সমঝোতা ততটুকু মেনে চলবে যতটুকু ইউরোপীয়রা এতদিন মেনে চলেছে এবং এখনো চলছে। এক্ষেত্রে যথেষ্ট ন্যায়নিষ্ঠা বজায় রাখা হবে।’

মঙ্গলবার ইরানকে সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদের পরিমাণ ৩০০ কেজির নীচে নামিয়ে আনার আহ্বান জানিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। ইইউ’র পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান কর্মকর্তা ফেডেরিকা মোগেরিনি এবং জার্মানি, ব্রিটেন ও ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা মঙ্গলবার এক যৌথ বিবৃতিতে এ আহ্বান জানান।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতির কারণেই পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে ২০১৫ সালের পরমাণু সমঝোতার কিছু ধারা বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি থেকে ইরান সরে এসেছে বলে মনে করছে চীন। বহুপক্ষীয় পরমাণু সমঝোতা থেকে ট্রাম্প গত বছর যুক্তরাষ্ট্রকে বের করে নেন।
চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র গেং শোয়াং মঙ্গলবার বেইজিংয়ে নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘আমরা এর আগে বহুবার বলেছি যে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের নীতিই বর্তমান সংকটের মুল কারণ।’ এএফপি এ খবর দিয়েছে।