পাকিস্তানে পরকীয়া সন্দেহে স্ত্রী, দুই সন্তান, তিন শালিকা ও শাশুড়িকে হত্যা করে বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে প্রবাসী আজমল

পাকিস্তানে পরকীয়া সন্দেহে সোমবার স্ত্রী, দুই সন্তান, তিন শালিকা ও শাশুড়িকে হত্যা করে বাড়িতে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে সৌদি প্রবাসী মুহাম্মাদ আজমল । স্ত্রী কিরণকে অন্য পুরুষের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্ক সন্দেহে প্রতিশোধ নিতে দেশে ফিরে এমন হত্যাকান্ড চালিয়েছে এবং তার অপরাধ স্বীকার করেছে বলে মুলতানের জেলা পুলিশ অফিসার ইমরান মেহমুদ জানিয়েছেন। ইয়ন, নিউ ইয়র্ক টাইমস

পরিষ্কারভাবেই এটা ‘অনার কিলিং’। আজমল তার স্ত্রী কিরণের সঙ্গে এক ব্যক্তির ছবি দেখে তাদের মধ্যে পরকীয়া সম্পর্ক চলছে বলে সন্দেহে করে এবং তিনি তার কাজের জন্য বিন্দুমাত্র অনুতপ্ত নন। আজমল এ ঘটনার ২৫ দিন আগে সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরে আসে। সেখানে সে দরজির কাজ করতো। এ হত্যাকান্ডের পর পুলিশ আজমল ও তার বাবাকে গ্রেফতার করেছে এবং হত্যাকান্ডে জড়িত সন্দেহে আজমলের এক ভাইকেও খুঁজছে পুলিশ।

কিরণের ভাই আলি রাজা বলেন, আজমল ও তার বোনের মধ্যে কয়েক বছর ধরে ঝামেলা চলছিল। যে কারণে কিরণ সম্প্রতি দুই সন্তান নিয়ে সৌদি থেকে পাকিস্তান ফিরে আসে এবং বাবার বাড়িতে বসবাস শুরু করে। আলি রাজা ঘটনার সময় বাবার সঙ্গে কিছুক্ষণের জন্য বাইরে গিয়েছিলো।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানে ‘অনার কিলিং’ এর ঘটনা নিয়মিত ঘটে। ২০১৬ সালে অনার কিলিংয়ের বিরুদ্ধে কঠোর আইন প্রণয়ন করা হলেও হত্যা থামানো যাচ্ছে না।