মান সম্মান নিয়ে বিদায় হতে চাইলে নির্বাচন দিন: দুদু

আওয়ামী লীগ সরকার মান সম্মান নিয়ে বিদায় হতে চাইলে নির্বাচন দিন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও কৃষক দলের আহ্বায়ক শামসুজ্জামান দুদু। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী চালক দলের উদ্যোগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও জাতীয় নির্বাচনের দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, মান সম্মান নিয়ে বিদায় হতে চাইলে অনতিবিলম্বে পদত্যাগ করুন। একটি তত্বাবধায়ক সরকারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করে একটি নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করুন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের অতীতের কথা স্মরণ করে এই সরকার বাতিল করে অনতিবিল¤ে দেশে আরেকটি নির্বাচন দিন। তা না হলে একবার যদি দেশের জনগণ রাস্তায় নেমে আসে তাহলে এই সরকার, সরকারের দল কেউ রেহাই পাবে না। শামসুজ্জামান দুদু বলেন, দেশে কোনো গণতন্ত্র নেই। গণতন্ত্রের কথা বললেই যেন অপরাধ হয়।
গণতন্ত্রের কথা বললেই মামলা হয়। কারাগারে যেতে হয়। দেশে ভোটের অধিকার নেই। ভোটের অধিকারের কথা বললেই ১ থেকে ১০০ টি মামলা হয়। বিএনপি ও বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের নামে প্রায় লক্ষাধিক মামলা হয়েছে। বিএনপির এই নেতা বলেন, একটি অদ্ভুত ব্যাপার। যে দেশে স্বাধীনতার জন্য, গণতন্ত্রের জন্য ৩০ লক্ষ মানুষ শহীদ হয়েছে। দুই লক্ষ মা বোন সম্ভ্রম হারিয়েছে। হাজার হাজার কোটি টাকার সম্পদ ধ্বংস হয়েছে। সেই গণতন্ত্র এবং স্বাধীনতা এখন নেই। এখানে একটি কর্তৃত্ববাদী, স্বৈরাচারী, অবৈধ সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ছাত্রদলের এই সাবেক সভাপতি বলেন, দেশনেত্রী খালেদা জিয়া স্বৈরশাসক এরশাদের বিরুদ্ধে দীর্ঘ নয় বছর আন্দোলন করে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এই দেশে তত্বাবধায়ক সরকারের আইন সংসদে পাস করেছিলেন। তিনি একমাত্র নেত্রী, যিনি মানুষের অধিকারের সরকার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। আইন পাশ করেছেন। সেই নেত্রীকে একেবারে মিথ্যা মামলায় প্রায় ১৭ মাস ধরে কারাগারে আটকিয়ে রেখেছে। এই মানববন্ধন থেকে তাকে অবিলম্বে মুক্তির দাবি জানাচ্ছি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, গত ছয় মাস আগে এই দেশে জাতীয় নির্বাচন হয়েছে। ৩০ তারিখের নির্বাচন ২৯ তারিখ রাতে করা হয়েছে। এই নির্বাচন আমেরিকা মানেনি, ব্রিটেন মানেনি, জাতিসংঘ মানেনি। এই দেশের যে পরাশক্তি দলগুলো আছে তারা মানেনি। অথচ এই অবৈধ সরকার ২৯ তারিখের অবৈধ নির্বাচনের কথা বলে ক্ষমতা ধরে রেখেছে। আমি সরকারকে বলবো অনতিবিলম্বে দেশে নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি করে নতুন করে নির্বাচন দিন।

সংগঠনের সভাপতি জসিম উদ্দিন কবিরের সভাপতিত্বে ও দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি ও কৃষক দলের সদস্য কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন এর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেনÑ বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, কৃষক দলের সদস্য লায়ন মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ার, আজম খান, জাতীয়তাবাদী চালক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মানিক তালুকদার, সহ-সভাপতি শাফিন আহমেদ লিখন, মুক্তার আকন্দ প্রমুখ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত