আগাম নির্বাচনের ডাক দিলেন গ্রিক প্রধানমন্ত্রী

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত চার দিনব্যাপি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের (ইইউ) পার্লামেন্ট নির্বাচনে বড় হারের মুখ দেখেছেন গ্রিক প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিপ্রাস। ইইউ নির্বাচনে প্রধান বিরোধীদল ‘নিয়া ডিমোক্রাশিয়া’র চেয়ে কমপক্ষে ১০ শতাংশ কম ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন সিপ্রাস ও তার দল। এমতাবস্থায় গ্রিসে আগাম নির্বাচনের ডাক দিয়েছেন তিনি। এ খবর দিয়েছে পলিটিক্যাল ইউরোপ।

খবরে বলা হয়, নির্বাচনে সিপ্রাসের পরাজয় প্রত্যাশিত ছিল। তবে অপ্রত্যাশিত ছিল ভোটের ব্যবধান। এই বিষয়ে নিজ দলের সঙ্গে আলাপ করে আগাম নির্বাচনের ডাক দিয়েছেন তিনি।

২০১৫ সালে ক্ষমতায় আসেন সিপ্রাস। সে ক্ষমতার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে আগামী অক্টোবরে। তবে আগেভাগেই নির্বাচন সেড়ে ফেলতে চাচ্ছেন তিনি। নিজদল ‘সিরজিয়া’র দলীয় কার্যালয়ে দেওয়া এক বক্তব্যে তিনি জানান, শিগগিরই গ্রিক প্রেসিডেন্ট প্রোকোপিস পাভলোপৌলোসের সঙ্গে দেখা করবেন তিনি। প্রিফেক্টোরাল ও স্থানীয় নির্বাচনের দ্বিতীয় দফা শেষে এই সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হবে। তাতে আগাম নির্বাচন ডাকার বিষয়ে আলোচনা করবেন তারা।
এদিকে, ফ্রান্সে জয় ঘোষণা করেছেন বিরোধীদলীয় নেত্রি ম্যারিন ল্য পেন। হেরে গেছেন ইউরোপপন্থি ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্ত ইমানুয়েল ম্যাক্রন। ল্য পেন জানিয়ছেন, এই নির্বাচনে জয় হচ্ছে, আগামী ২০২২ সালের নির্বাচনে তার দলের জয়ের পূর্বাভাস। তিনি ম্যাক্রনকে পার্লামেন্ট ভেঙে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। কিন্তু ম্যাক্রনের দল, ইইউ পার্লামেন্টে জাতীয়তাবাদীদের বিরুদ্ধে তাদের লড়াই অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।