জি এস সি ইউকের সাথে সিলেট চেম্বার অব কমার্সের চেয়ার খোন্দকার শিপার আহমদ এবং মেডিপ্রস্পেক্টারের ডাইরেক্টার শফি চৌধুরীর মতবিনিময় অনুষ্টিত

গ্রেটার সিলেট ডেভোলাপমেন্ট ইউকের সাথে সিলেটের ২ জন বিষিষ্ট ব‍্যাক্তিদ্বয়ের সাথে মত বিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়।সংগঠনের চেয়ার বিষিষ্ট আনজিবী জনাব বারিষ্টার আতাউর রহমানের সভাপতিত্ত্বে এবং সাউথ ই্ষ্টের সেক্রেটারী জনাব ফজলুর রহমান চৌধুরীর সঞ্চালনায় এবং বিপুল সংখ‍্যক সদস‍্য ও নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে প্রথম অংশে কেবল মাত্র মি: সফি চৌধুরীর সাথে মত বিনিময় অনুষ্টিত হয়।
জনাব চৌধুরী বর্তমান যুগের টেকনোলজীর ব‍্যাখ‍্যা দেন এবং বলেন এমন দিন শীঘ্রই আসতেছে ,যেমন সকালে কাজে যাবার সময় মেশিনকে বলে যাবে আমি বিকাল ৭টার সময় ডিনার চাই এবং ডিনারটি হবে এই রকম ,মেশিনের টেকনোলজী তা প্রস্তুত করে রাখবে এবং ৭টার সময় আপনাকে সার্ভ করবে।
তিনি বলেন দিন শিঘ্রই আসতেছে যে চিরাচরিত ধরনের শিক্ষা চলবে না ,অনেক বড় ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্টান বন্ধ হয়ে যাবে যদি তারা বর্তমান যুগের সাথে তাদেরকে তৈরী না করে।
মি:চৌধুরী আরো বলেন সময় আসতেছে ছাত্রদেরকে শিক্ষাপ্রতিষ্টানগুলোকে আর কোন টাকা কোন টিউশন ফি দিতে হবেনা না ,বরঞ্চ প্রতিষ্টানগুলো উল্টো টাকা দিতে হবে। তিনি বর্তমান যুগের ছাত্রছাত্রীদরকে প্রস্তুত হওয়ার আহবান জানান।
তিনি বলেন প্রয়োজনে এই গ্রেটার সিলেঠের হেডঅফিসে সবার ছেলেমেয়েদেরকে নিয়ে আসার জন‍্য ,তিনি তাদরকে বলবেন বর্তমান যুগে কোন শিক্ষাপ্রতিষ্টানগুলো তাদের জন‍্য উপযোগী। তিনি আরও বলেন প্রয়োজনে তিনি গ্রেটার সিলেট ডেভােলাপমেন্টের ১২ রিজিওনে যেতে রাজী আছেন।
২য় পর্বে আলোচনাে হয় ,সিলেট চেম্বার অব কমার্সের চেয়ারম‍্যান জনাব শিফার আহমদের সাথে।জনাব আহমদ বলেন তিনি তার ব‍্যাক্তিগত উদ‍্যোগে এখানে উপস্থিত হয়েছেন এবং বলেন সিলেটের বিমানবন্ধরের পার্শে গোয়াইনঘাট উপজেলায় নতুন করে হাইটেক পার্ক তৈরী করা হবে। এবং এখানে প্রবাসীরা অংশ করতে পারবে। তারা বর্তমানে মডার্ন টেকনোলজির যুগে চাইলে এসম্ত প্রজক্টে অংশ গ্রহন করতে পারবে। তাদের ছেলে মেয়েরা এখানে অনেকেই উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়েছেন ,তারা যদি এসমস্ত প্রজেক্টে অংশ গ্রহন করতে চায় তিনি তাদেরকে উপদেশ দেয়ার জন‍্য প্রস্তুত আছেন।
উপস্থিত অনেকেই বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন রাখেন ,এর মধ‍্যে একজন ছিলেন গ্রেটার সিলেট ফ্রান্স কাউন্সিলের চেয়ারপারসন,তিনি তার পৃরোনো অভিজ্ঞতার কথা বলেন ।কারন আমরা প্রবাসী হওয়ার পর সবাই বাংলাদেশে বিনিয়োগ করেছি.কিন্তু লাভবান হওয়া অনেক বড় কথা ,আমরা আমাদের মূলধন ও ফেরত পাইনাই। সবসময় আমরা প্রতারিত হয়েছি। তিনি আর ও বলেন ,আামাদের ভোটাধিকার নাই,নাই আমাদের নাগরিকত্ত । আমরা কোথায় কি জন‍্য এবং কোন ভরষায় বাংলাদেশে বিনিয়োগ করব।
আলোচনা সভায় অনেকেই অংশ গ্রহন করেছেন ,তারমধ‍্যে সাউথ ইষ্টের চেয়ার ইসবাহ উদ্দিন,কে এম আবু তাহের চৌধুরী,বারিষ্টার মাসুদ চৌধুরী,এম এ আজিজ,জনাব আব্দুল মালিক কৃুট্টি,আব্দুল গফুর ,মুহিব উদ্দিন চৌধুরী,আলহাজ্ব ছমির উদ্দিন,আখলাকুর রহমান,হেলেন ইসলাম .জোস্না ইসলাম,আবুল মিয়া,সূফি সুয়েল আহমদ ,হাজী ইরফান আলী,তাজ উদ্দিন,আরিফ উদ্দিন,সালেহ আহমদ.বাহার উদ্দিন,এ রহমান, ফাতেমা হোসেন,কবি নজরুল ইসলাম,সাজু আহমদ,এম এ মুকিত সহ আরোও অনেকেইঅংশ গ্রহন করেন।